‘করোনার আতুড়ঘর’ না’গঞ্জে পিসিআর ল্যাবের গল্পের নায়ক যে জন? (ভিডিওসহ)

সুভাষ সাহা: অবশেষে অনেক প্রতিক্ষার পর প্রধানমন্ত্রীর ব্যাক্তিগত উদ্যোগে মাত্র ২১ দিনের মাথায় ৬ মে ২০২০ বুধবার না’গঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার পিসিআর ল্যাবোরেটরি স্থাপিত হল।।

সুভাষ সাহা: অবশেষে অনেক প্রতিক্ষার পর প্রধানমন্ত্রীর ব্যাক্তিগত উদ্যোগে মাত্র ২১ দিনের মাথায় ৬ মে ২০২০ বুধবার না’গঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার পিসিআর ল্যাবোরেটরি স্থাপিত হল।। পেয়েই কাজে লাগিয়েছেন।

উল্লেখ্য,হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার গৌতম রায় করোনা পজিটিভ নিয়ে কোয়ারান্টাইনে থাকায় সতীর্থ ডা. শামসুদ্দোহা সঞ্চয় হাসপাতালের প্রতিনিধি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীর সামনে বক্তব্য রাখেন। এককথায় প্রথম সুযোগেই বাজিমাৎ! প্রধানমন্ত্রীর কাছে উত্থাপিত দাবিগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিল পিসিআর ল্যাব, আইসিইউ এবং এন-৯৫ মাক্স।

করোনা সংক্রমনে জর্জড়িত ঘনবসতিপূর্ণ প্রায় ৪০ লাখ অধ্যুষিত বৃহত্তর শিল্পনগরী না’গঞ্জে চিকিৎসার প্রধান আশা ভরসাস্থল সরকারি ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসার মানোন্নয়নের এই ধাপে দূরদর্শী ডা.সঞ্চয়ই মূল অনুঘটক হিসেবে সকলের প্রশংসা পেয়েছেন।

ডা.সঞ্চয়ের কথার রেশ ধরে না’গঞ্জের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ জেলায় পিসিআর ল্যাব, আইসিইউর না থাকায় বিস্ময় প্রকাশ করে তাৎক্ষণিক নারায়ণগঞ্জে ৩০০ শয্যা হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। এরই ফলশ্রুতিতে আজকের এই সাফল্য।

৬ মে বুধবার ২০২০ দুপুরে হাসপাতালে পিসিআর ল্যাব আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান। সময়োপযোগী এই অভূতপূর্ব সিদ্ধান্তের জন্য সাংসদ সেলিম ওসমান প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকশ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক জসিমউদদীন, জেলা সিভিল সার্জন ডা.মোহম্মদ ইমতিয়াজ, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা.গৌতম রায়, কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু, জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির প্রতিনিধি ডা.জাহিদুল ইসলাম প্রমূখ।
বহুল প্রতিক্ষিত পিসিআর ল্যাব চালুর ফলে নারায়ণবাসীর মধ্যে অনেকটাই স্বস্তি ফিরে এসেছে ।

এর আগে গত সপ্তাহে পাট ও সাংসদ ও বস্ত্রমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর ব্যক্তিগত উদ্যোগে রূপগঞ্জে আরো একটি পিসিআার ল্যাবে করোনা পরীক্ষা শুরু করা হয়। ফলে, নারায়ণগঞ্জ জেলায় এ নিয়ে দুটি পিসিআার ল্যাব স্থাপিত হল।

ডেঙ্গু পরীক্ষায়ও নারায়ণগঞ্জের দুটি পিসিআার ল্যাব ভবিষ্যতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন উপস্থিত চিকিৎসকগণ। প্রধানমনন্ত্রীর নির্দেশনা ও ব্যাক্তিগত তৎপরতায় দ্রুততম সময়ে ল্যাবে ও একইসঙ্গে চালু করা হয় আসিইউ ইউনিটও।

এখান থেকে ২৪ ঘন্টায় করোনা পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে। ল্যাবে দুজন টেকনিশিয়ান নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তাদের দক্ষ করে তুলতে ঢাকা থেকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।
হাসপাতালের ১৬ জন চিকিৎসক, ৭ জন নার্স ব্রাদার্সসহ ১০০ স্বাস্থ্য কর্মীর থাকা খাওয়া ও আনা-নেওয়ার সুব্যবস্থা করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য।

সংসদ সদস্য তাঁর বক্তৃতায় অকারণে কেউ যেন করোনা পরীক্ষা না করান সেবিষয়ে অনুরোধ করেন।

নিউজ২৪.ওয়েব/ডেস্ক/মৌ দাস

news24 bd

Read Previous

করোনা রোগীকে মাঝরাতে বাড়ি থেকে বের করে দিলো বাড়িওয়ালা

Read Next

ভারতে বিষাক্ত গ্যাস লিক: শত শত লোক অসুস্থ, নিহতের সংখ্যা ১৩

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *