ছেলেকে কাঠগড়ায় দেখে ভ্যানচালক বাবার স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার

অনলাইন ডেস্ক: জয়পুরহাট সদরের দোগাছি গ্রামের বাসিন্দা তিনি। পেশায় ভ্যানচালক। নাম আতিকুল ইসলাম। হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রমের টাকা ও প্রতিবেশীদের সহযোগীতায় নিজের মেধাবী ছেলে আকাশকে বুয়েটে ভর্তি করিয়েছিলেন। আশায় ছিলেন আকাশের হাত ধরে এই অভাবের সংসারে এক সময় পূর্ণতা আসবে। ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে আকাশ সংসারের হাল ধরবে।

কিন্তু ছেলেকে কাঠগড়ায় দেখে ভ্যানচালক বাবার সে স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে গেছে। বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনা দেশব্যাপী চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। আবরার হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ১৩ জনকে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

এদের মধ্যেে একজন জয়পুরহাটের ভ্যানচালক আতিকুল ইসলামের ছেলে বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ১৬তম ব্যাচের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র মো. আকাশ হোসেন (২১)। বুধবার আদালত তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আকাশের বাবা আতিকুল ইসলাম বলেন, আকাশ ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার সদস্য, এটা জানতাম না। তবে ছেলেকে রাজনীতিতে জড়িত না হতে বারবার নিষেধ করেছিলাম। সে যদি আমার কথা শুনতো তাহলে আজ এ পরিস্থিতি হতো না।

দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে আতিকুল বলেন, ‘সব স্বপ্ন শেষ। এখন স্বপ্ন পূরণ তো দূরের কথা, জীবনটাই বাঁচানো দায় হয়ে পড়ছে। পুরো পরিবার দুশ্চিন্তায় চোখে মুখে সব ঝাঁপসা দেখতেছি।’

তিনি বলেন, ছেলেকে বুয়েটে পাঠায়ছিলাম ইঞ্জিনিয়ার বানাতে। নিজে না খেয়ে তার জন্য মাসে মাসে টাকা পাঠায়ছি আজ এই দিন দেখার জন্য!

আকাশের বাবা আরো বলেন, পুরো জয়পুরহাট জেলার লোক তার সুনাম করছিল। মেট্রিক-ইন্টারে গোল্ডেন এ প্লাস পাইছে। এলাকার মানুষ তার লেখাপড়ায় নিজ থেকে সহযোগিতা করেছে। আজ সব শেষ হয়ে গেল।

নিউজ২৪.ওয়েব/ডেস্ক/মৌ দাস.

newsone

Read Previous

বুয়েট শিক্ষার্থীরা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন

Read Next

বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষনা: ভিসি সাইফুল ইসলাম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *